মঙ্গলবার, ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

অবলা নারী

কবিঃ বজলুর রশীদ চৌধূরী

নারী মোদের অবলা জাতি-সহজ সরল মন,
নারীর কাছে ভালবাসা-ইহাই বড় ধন।
দুঃখে-কষ্টে থাকে নারী-মুখ নাহি খুলে,
ভালবাসার মালা পরে-সবই যায় ভুলে।
শ্বশুড় বাড়ী যায় কণে-অজানা পথ ধরে,
আদর সোহাগ দিয়ে সেথায়-পরকে আপন করে।
দুঃখ ব্যথা যত পায়-নীরবে যায় সহি,
মুখে নাহি বলে কিছু থাকে রহি রহি।
ফেল ফেলিয়ে তাকায় নারী-অসহায়ের ছাপ,
যত ব্যথা বুকে আছে-কালের অভিশাপ।
বিয়ে ভঙ্গ পোড়া অন্তর-সইতে নাহি পারে,
গন্ড বহি অশ্রু তাহার ঝরে বারে বারে।
বিয়ের খরচ আনে পিতা-ভিটের দলিল দিয়ে,
ভিটে গেল দাগ লাগিল-না হইল বিয়ে।
যৌতুক ভারে পিতা মরে-ভাই ছাড়ে বাড়ী,
তবু নাহি পায় গো সাথী-ব্যার্থ জীবন পাড়ি।
তালাক পাওয়া তাড়া খাওয়া-হর হামেশার খেলা,
পরের ঘরের বুয়া হয়-হায়রে অবহেলা।
তবু নাহি বলে নারী-আপন বুকের কথা,
চোঁখের ভাষায় জানিয়ে দেয়-দিন যাপনের ব্যাথা।
অন্ধকারে রইবে নারী-জানবে না সে কিছু
কু-সংস্কার আর গোঁড়ামী কি হাটবে পিছু পিছু?
নারী নহে গৃহবন্দী-নয় গো খাঁচার পাখি,
নারী গর্ভে জন্ম মোদের-নারীর সাথে থাকি।
নারী আনে নূতন জীবন-নারী দানে বংশ,
নারী গড়ে সোনার সংসার-নারী অর্ধেক অংশ,
কূসংস্কার আর গোঁড়ামী যাক-আস্তা কূড়ে,
নারী সমাজ মুক্তি পাক্-সারা বিশ্ব জুড়ে।

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯  

All Rights Reserved ©2024