সোমবার, ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আমি সেই মেয়ে

কবিঃ সোমা দাস

আমিই সেই মেয়ে,
যাকে তোমরা নর্দমায় ফেলে দিয়েছিলে,
কচি হাত আর পায়ের গোড়ালি গুলো-
কামড়ে থেতলে দিয়েছিলো বিষাক্ত কীট গুলো l
মৃত্যু কে বৃদ্ধাঙ গুষ্ঠ দেখিয়ে তিল তিল করে বেড়ে উঠেছে যার জীবন,
অনেকগুলো বসন্ত পেরিয়ে যার ঠাঁই হলো নর পিশাচ এর সমাজে,
শৈশব কেটেছে দুর্গন্ধ আস্তাকুড়ে,
যৌবন বয়ে গেলো নিয়মের অববাহিকায়,
আমিই সেই মেয়ে!
নর পিশাচ দের হাত থেকে বাঁচতে, যাকে–
মাইল এর পর মাইল দৌড় তে হয়েছে,
ক্লান্ত শরীর ছায়াতলে এসে যেন,
বিরামহীন জীবনের ইতি টানতে চাইছে,
আমিই সেই মেয়ে!
প্রতিবাদের আগুন জ্বলছে চোখে,
সেই আগুনের লেলিহান শিখা যেন-
গ্রাস করতে চাইছে ভীরু কাপুরুষ দেরকে,
রঙিন স্বপ্নে ভাঁটা পড়েছে আজ,
চারদিকে শুধু অসহায় নারীর আর্তচিৎকার—-!
‘প্রতি শোধ নাও তুমি প্রতি শোধ নাও’-,
শাসন-শোষণে র করালগ্রাস থেকে,
অত্যাচার এর যোগ্য শাস্তি দিতে,
নব জীবনের জাল বুন ছিলো যে–
আমিই সেই মেয়ে!
অপমানের বোঝা মাথায় নিয়ে,
রাতের পর রাত কাটিয়েছে অবহেলায়,
যার আকুল ক্রন্দন এ বৃক্ষের পাতা ঝরে,
কিন্তু মুখোশ পরা নর পিশাচ এর বুক কাঁপে না—
আমিই সেই মেয়ে!
একদিন যাকে তোমরা শুধু মাত্র,. শয্যাসঙ্গিনী করে রাখতে চেয়েছিলে,
দূর গায়ের পুকুর থেকে জল আনতে গিয়ে-
যাকে মুখ লুকোতে হয়েছিলো আত্মসন্মান এর ভয়ে,
আমিই সেই মেয়ে!
ডাইনি অপবাদে যাকে গ্রাম ছাড়তে হয়েছিলো,
মনে পড়ে? ঘুঁটঘুটে অন্ধকার এ যাকে তোমরা শকুনের ন্যায় ছিঁড়ে ফেলতে চেয়েছিলে!
আমিই সেই মেয়ে!
আভি জাত্যএর অহংকার আর আসুরিক মর্যাদা য় যাকে রঙিন পেয়ালা য় ভরতে চেয়েছিলে–,
আমিই সেই মেয়ে!
অপমান আর লাঞ্চ না তাকে তিল তিল করে গড়ে তুলেছে দূর্গা রূপে,
কলম ধরেছে মেয়ে,
ভাবতেও পারো নি তোমরা,
এই মেয়ে কি সেই মেয়ে!
কান পেতে শুনে রাখো,
আমিই সেই মেয়ে,
তোমাদের বাংলো টা আগের মতই আছে,
তবে রং হীন ভুতুড়ে বাড়ি, নেই কোন সুরের ঝংকার,
আছে শুধু অবসাদ,
পদানত হতে হবে তোমাদের,
যুগের পর যুগ,
সাবধান হও ll

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  

All Rights Reserved ©2024