সোমবার, ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ইনু কেন হারলেন

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন জয়লাভ করলেও জিততে পারেননি জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু। কুষ্টিয়া-২ (মিরপুর-ভেড়ামারা) আসনে নৌকা প্রতীকের এই হেভিওয়েট প্রার্থীকে ২৩ হাজার ৩৫৪ ভোটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী কামারুল আরেফিন। জাসদ নেতারা বলছেন, আওয়ামী লীগই তাদের হারিয়ে দিয়েছে। কামারুল ট্রাক প্রতীকে ১ লাখ ২৫ হাজার ৭৯৯ ভোট পেয়েছেন। আর ইনু নৌকা মার্কায় ভোট পেয়েছেন ৯২ হাজার ৪৪৫। এদিকে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার গোলাপনগরে ইনু তার নিজ বাসভবনে গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে একটি টেলিভিশনে সাক্ষাৎকারে বলেন- কুষ্টিয়া-২ আসনে খুব পরিকল্পিত কারচুপি হয়েছে। প্রশাসনের রহস্যজনক নীরবতায় আমি পরাজিত হয়েছি।

কুষ্টিয়া-২ আসনে টানা তিনবার এমপি ছিলেন জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু। ২০০৮ সালে জোটগতভাবে ভোট করে প্রথম জয় পান ১৪ দলীয় জোটের প্রার্থী ইনু। ২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনে তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

জানা গেছে, ২০০৮ সালে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর দ্বন্দ্ব শুরু হয় আওয়ামী লীগ ও জাসদের স্থানীয় নেতা-কর্মীদের। আওয়ামী লীগ নেতাদের দীর্ঘদিনের অভিযোগ, ইনুর সঙ্গে বা জাসদ নেতাদের সঙ্গে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাদের সমন্বয় নেই। সংঘর্ষ ও খুনোখুনিও হয়েছে। হাসানুল হক ইনু বলতেন, আমাদের (শরিক দলের) ২০ পয়সার সঙ্গে আওয়ামী লীগের ৮০ পয়সা যোগ হয়েই ১০০ পয়সা হয়েছে। তারই কথার রেশ ধরে ওই ৮০ পয়সার মালিক আওয়ামী লীগের নেতারা আর ছাড় দিতে রাজি হননি। মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামারুল আরেফিন বলেছেন, তারা (জাসদ) আমাদের ভোট নিয়ে জয়লাভ করে আমাদের ওপরই অত্যাচার করে। এ জন্য আওয়ামী লীগের ভোটাররাই কামারুলকে ভোটে দাঁড় করিয়ে দেন। মিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ করে তিনি ট্রাক প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হন। কামারুল নিজেকে আওয়ামী লীগ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন। মিরপুর ও ভেড়ামারা দুটি উপজেলার আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা কামারুলের সঙ্গে থেকে ভোট করেছেন। এ কারণে আওয়ামী লীগের একচেটিয়া ভোট পেয়েছেন কামারুল।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগের ভেতরে দ্বন্দ্ব থাকায় এই দুই উপজেলায় যারা মূলধারার বিরোধী সেইসব আওয়ামী লীগ নেতা ভোট করেন ইনুর পক্ষে। তারা কিছু ভোট টানলেও ইনুকে জয়ের বন্দরে ভেড়াতে পারেন নি।

রহস্যজনক নীরবতায় পরিকল্পিত কারচুপি হয়েছে- ইনু : কুষ্টিয়া-২ আসনে নৌকা প্রতীকের পরাজিত প্রার্থী জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, খুব পরিকল্পিত কারচুপি হয়েছে। প্রশাসনের রহস্যজনক নীরবতায় আমি পরাজিত হয়েছি। কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার গোলাপনগরে ইনু তার নিজ বাসভবনে গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে একটি টেলিভিশনে সাক্ষাৎকারে এ অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, এখানে মস্তান-কালোটাকার ছড়াছড়ি ও প্রশাসনের রহস্যজনক নীরবতার কারণেই আমি পরাজিত হয়েছি। প্রশাসনের পরিকল্পিত ও উদ্দেশ্যমূলক নিষ্ক্রিয়তা সম্পর্কে পরে ভেবে দেখবেন বলেও জানান ইনু।

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  

All Rights Reserved ©2024