সোমবার, ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মিশিগানে আওয়ামী লীগ-বিএনপি’ র ‘ঠেলা, ধাক্কা-ধাক্কি’

নিজস্ব ডেস্কঃ জাতিসংঘ ও হোয়াইট হাউজ করেসপন্ডেট মুশফিকুল ফজল আনসারীর বক্তব্যকে কেন্দ্র করে যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। গত ১৭ জুলাই (রবিবার) হ্যামটামিক সিটির কাবাব হাউজ রেস্টুরেন্টে এই ঘটনা ঘটে।

জাতিসংঘ ও হোয়াইট হাউজ করেসপন্ডেট এবং জাস্ট নিউজ সম্পাদক মুশফিকুল ফজল আনসারীর মিশিগান আগমন উপলক্ষে বাংলা প্রেস ক্লাবের আয়োজনে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রেস ক্লাব সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের আমন্ত্রণে আওয়ামী লীগ-বিএনপিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও আঞ্চলিক সংগঠনের নেতারা অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন। মতবিনিময়ে সভাপতিত্ব করেন প্রেসক্লাব সভাপতি সৈয়দ সাহেদুল হক সাহেদ। সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কামাল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, অনুষ্ঠানে মুশফিকুল ফজল আনসারীর বেশির ভাগ বক্তব্যে জুড়েই ছিলো সরকার বিরোধী। বাংলাদেশের গণমাধ্যমকে হেয় করেও তিনি বক্তব্যে রাখছিলেন। এক পর্যায়ে মিশিগান স্টেট আওয়ামী লীগ সভাপতি ফারুক আহমেদ চান জাস্ট নিউজ সম্পাদক মুশফিকুল ফজল আনসারীর এক তরফা বক্তব্যের প্রতিবাদ করেন। এতে বিএনপি সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে তার দিকে তেড়ে যান এবং অনুষ্ঠান থেকে চলে যেতে ঠেলা ধাক্কাধাক্কি করেন। এসময় মিশিগান স্টেট আওয়ামী লীগের সহসভাপতি সুলেমান খান বিএনপি নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেন।

মুশফিকুল আনসারীর বক্তব্যের প্রতিবাদ করেন জাসদ ছাত্রলীগের এককালের তুখোড় নেতা আমিনুর রশীদ চৌধুরী। প্রতিবাদ করার কারণে তার সাথেও বিএনপি সমর্থকরা বাকবিতন্ডায় লিপ্ত হন। অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের তিন জন নেতা উপস্থিত ছিলেন। হট্টগোলের আগ মুহুর্তে অনুষ্ঠান থেকে চলে যান স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক ফয়সল চৌধুরী।

প্রেস ক্লাব সভাপতি সাহেদুল হক, জালালাবাদ সোসাইটির সভাপতি এন ইসলাম শামীম, বিএনপি সভাপতি আকমল চৌধুরী,সেক্রেটারি সেলিম আহমেদ, বিয়ানিবাজার সমিতির সভাপতি আজমল হোসেনসহ আরও বেশ কয়েকজন পরিস্থিতি শান্ত করেন।

প্রেস ক্লাব সভাপতি সৈদয় সাহেদুল হক তার বক্তব্যে বলেন, প্রেসক্লাব সবার সংগঠন। দল নিরপেক্ষ সংগঠন। আজকের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এবং যদি কোনো কথাবার্তায় কেউ কষ্ট পেয়ে থাকেন প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে দু:খ প্রকাশ করছি। প্রেস ক্লাবের প্রতিটি সদস্য দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে এই বিদেশের মাটিতে সাংবাদিকতা করেন।

এদিকে আওয়ামী লীগ নেতাকে ঠেলা ধাক্কাধাক্কির ঘটনায় দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। সোমবার রাতে এ রিপোর্ট লেখার সময় মিশিগান স্টেট আওয়ামী লীগ ও মিশিগান মহানগর আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ হয়ে বৈঠকে বসেছে বলে সূত্র জানিয়েছে।

মুশফিকুল ফজল আনসারী তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশে গণতন্ত্র নেই। মত প্রকাশের স্বাধীনতা নেই। সব কিছুর মধ্যে শংকা। তারা মানুষের অধিকারের কথা বলে অথচ স্বাধীন ভোটের আয়োজন করতে পারে না। নির্বিচারে মানুষকে মেরে ফেলছে।

বাংলাদেশের অনেক পরিবারের ‍উপার্জম ব্যক্তি দিনের পর দিন বাড়িতে থাকতে পারছে না। কিংবা কারাগারে থাকতে হচ্ছে। অনেকেরে গুম করে ফেলা হয়েছে। সংসারের উপার্জন ব্যক্তি যদি সমস্যায় পড়ে তখন ‍পুরো পরিবার সমস্যায় আক্রান্ত হয়।

তিনি আরও বলেন, ১২ টন অস্ত্র নিয়ে একটি বিমান ভুপাতিত হওয়া এবং একই সময়ে ৮ জন ক্রু নিহতের সংবাদটি বাংলাদেশের মিডিয়াগুলো কোট করছে ডেইলি মেইল ও বিবিসিকে। অথচ এটি চাইলেই নিজস্ব সংবাদ মাধ্যমে বাংলাদেশ এই নিউজটি দিতে পারতো।
আইএসপিআর একটি বিবৃতি দিয়ে বলছে, এটার মধ্যে মটর ছিলো। এই চালানে কোনো অস্ত্র ছিল না। আবার পররাষ্ট্র সচিব বলছেন, এটায় বিধ্বংসী অস্ত্র ছিলো। আমাদের ইন্স্যুরেন্স করা আছে। আইএসপির একটা বলছে। পররাস্ট সচিব আরেকটা বলছেন। রাষ্ট্রের জবাব দিহিতা না থাকলে যা হয়। এটিকে ছেলে খেলা মনে করবেন না। এই দৌঁড় কত দুর যায়, এখানে মাত্র শুরু। এই নিয়ে আন্তর্জাতিক পলিটিক্স চলছে। এখানে শুধু বাংলাদেশের একটা দল ক্ষতিগ্রস্ত হবে না তা নয়, এটি একটি বিশাল ম্যাসেজ কিন্তু।

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  

All Rights Reserved ©2024