বুধবার, ১৯শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মিশিগানে করোনার সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান অঙ্গরাজ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে। ইউএস সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের তথ্যমতে, করোনাভাইরাসে আক্রান্তের ক্ষেত্রে মিশিগান রাজ্য গত মঙ্গলবার দেশের সবচেয়ে খারাপ হট স্পটে পৌঁছেছে। গত সাত দিনে রাজ্যেটিতে প্রতি ১ লাখ মানুষের মধ্যে ৫০৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। যা দেশটির অন্য রাজ্যের মধ্যে সর্বোচ্চ।

পরিসংখ্যান বলছে,মিশিগানে ভাইরাসে গত ২০ মাসে আবারও উর্ধ্বগতি হয়েছে এবং মিশিগানের হাসপাতালের সক্ষমতা ক্রমেই কমছে। সর্বশেষ এপ্রিল মাসে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল সর্বোচ্চ। রাজ্যের হাসপাতাল কতৃপক্ষ সূত্র বলছে, করোনা পরিস্থিতি খারাপ হওয়ায় তারা রোগীদের অনুভব করছেন। কারণ গত মাসে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় ৫০ শতাংশ বেড়েছে।

মিশিগান হেলথ অ্যান্ড হসপিটাল অ্যাসোসিয়েশনের মুখপাত্র জন কারাসিনস্কি বলেছেন, হাসপাতালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা খুবই উদ্বেগজনক।

তিনি আরও বলেন, “আমরা গত কয়েকদিনে হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি দেখছি। ভাইরাসটি কতদিন স্থায়ী হবে এবং ২০২০ সালের মার্চ থেকে মহামারি মোকাবিলায় স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের এটি কীভাবে প্রভাবিত করবে তা এখনও স্পষ্ট নয়।”

এদিকে সংবাদ সম্মেলনে স্পেকট্রাম হেলথ ওয়েস্ট মিশিগানের প্রেসিডেন্ট ড. ড্যারিল এলমাউচি বলেন, “আজ আমরা যা অনুভব করছি তা নজিরবিহীন। এর আগে আমরা এরকম কিছু অনুভব করিনি। স্পেকট্রাম ওয়েস্ট মিশিগানে বর্তমানে ৩৬৭ জন করোনা পজিটিভ রোগী রয়েছে।

তিনি আরও বলেন,“গত সপ্তাহ থেকে নাটকীয়ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। হেলেন ডিভোস চিলড্রেনস হাসপাতালে ১৮ জন শিশু করোনার জটিলতায় ভুগছে। যা মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে সবচেয়ে বেশি।”

হেলেন ডিভোস চিলড্রেনস হাসপাতালের কর্মকর্তাদের মতে, সাম্প্রতিক সময়ে করোনা বৃদ্ধির কারণে একজন শিশু মারা গেছে। হাসপাতালের শয্যা স্বল্পতার মধ্যে থাকলেও স্পেকট্রাম হেলথ আধিকারিকরা বলছেন যে, তাদের রোগীদের চাহিদা মেটাতে পর্যাপ্ত ভেন্টিলেটর রয়েছে। স্পেকট্রাম হেলথ গ্র্যান্ড র‌্যাপিডসের চিফ অপারেটিং অফিসার ব্রায়ান ব্রাসার বলেছেন, “ আমরা এখন যা দেখছি কিছুদিন পর হয়তো আমাদের প্রয়োজন মেটাতে এক হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতালে ভেন্টিলেটর নিয়ে যেতে হবে।”

ডেট্রয়েট-ভিত্তিক হেনরি ফোর্ড হেলথ সিস্টেমের প্রধান ক্লিনিকাল অফিসার ডঃ আদনান মুনকারাহ বলেছেন, “আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। আমরা আশা করছিলাম গত বছরের তুলনায় চলতি বছরের থ্যাঙ্কসগিভিংয়ে আরও ভাল পরিস্থিতির মধ্যে থাকব, বিশেষ করে ভ্যাকসিনের প্রাপ্যতার জন্য। এখন আমরা আতঙ্কে আছি এবং আমাদের রাজ্যজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়া নিয়েও উদ্বিগ্ন।” যারা আগামী সপ্তাহে থ্যাঙ্কসগিভিংয়ের জন্য জড়ো হওয়ার পরিকল্পনা করছেন তাদের প্রতি টিকা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন মুনকারাহ।

গত বছরের মতো করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও এখনই কড়া পদক্ষেপ নিচ্ছে না রাজ্য গভর্নর হুইটমারের প্রশাসন। এক বছর আগে সোমবার ‍হুইটমার করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্কুল, কলেজ ও হোটেল বন্ধ করে দিয়েছিলেন। কিন্তু এটা স্পষ্ট নয় যে, ‍হুইটমারের প্রশাসন একই পদক্ষেপ নেবেন কী না! হুইটমারের মুখপাত্র ববি লেডি চলতি সপ্তাহে কোন ইঙ্গিত দেননি যে, গভর্নর আবারও জরুরি ক্ষমতা ব্যবহার করবেন। তিনি বলেন, আমরা মিশিগানবাসীকে টিকা নেওয়ার জন্য উৎসাহিত করতে চাই, কারণ এটি মানুষকে নিরাপদ রাখে। এছাড়া ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান এবং স্কুল-কলেজ নিরাপদে পরিচালনা করার সর্বোত্তম উপায়।

উল্লেখ্য, গত বছর মার্চ মাসে রাজ্যে প্রথম ভাইরাসটি শনাক্ত হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ২৩,১০৪ জনের এবং শনাক্ত হয়েছে ১,২২৪,২৭৩ জন।

 

 

শেয়ার করুনঃ

সর্বশেষ

বিজ্ঞাপন

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

All Rights Reserved ©2024