পবিত্র কোরআন হাতে শপথ নিলেন ডিয়ারবর্নের মুসলিম মেয়র

নিজস্ব ডেস্কঃ সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান স্টেটের ডিয়ারবর্ন সিটির প্রথম আরব-আমেরিকান মুসলিম মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন আবদুল্লাহ হাম্মুদ। আর এবার পবিত্র কুরআন হাতে নিয়ে শপথ গ্রহণ করে নতুন ইতিহাস তৈরি করলেন তিনি। বাড়ি থেকে যে কোরআন হাতে নিয়ে গিয়েছিলেন সেটি স্পর্শ করে শপথবাক্য উচ্চারণ করেন হাম্মুদ।

এর আগে গত ২ নভেম্বর অনুষ্ঠিত সিটি মেয়র নির্বাচনে ডিয়ারবর্ন সিটি থেকে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন আবদুল্লাহ হাম্মুদ। আবদুল্লাহ হাম্মুদ ডিয়ারবর্নের প্রথম আরব-আমেরিকান মেয়র হিসেবে শপথ নিয়েছেন।

শপথ নেয়ার পর সিটির প্রথম আরব আমেরিকান এবং মুসলিম মেয়র হাম্মুদ তার বক্তৃতা শুরু করেন। হাম্মুদ বলেন, আপনার ব্যাকগ্রাউন্ড, জিপ কোড বা মাতৃভাষা যাই হোক না কেন, ডিয়ারবর্ন সিটি সর্বদা আপনার সাথে ন্যায়সঙ্গত আচরণ করবে এবং প্রতিদিন আপনাদের বিশ্বাস অর্জন করার চেষ্টা করবে।”

হাম্মুদ বলেন, “আমাদের সামনের কাজ সম্পর্কে আমি যখন চিন্তা করি, তখন আমি প্রয়াত কংগ্রেস সদস্য জন ডিঙ্গলের জনসাধারণের উদ্দেশ্যে তার চূড়ান্ত ভাষণে কথাগুলো মনে করি, যিনি ৫৯ বছর কংগ্রেসে রাজ্যের প্রতিনিধিত্ব করার পর ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে ৯২ বছর বয়সে মারা যান।কংগ্রেসের ইতিহাসে তিনি দীর্ঘতম সদস্য ছিলেন।

তিনি তাঁর উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, “নির্বাচিত কর্মকর্তাদের ক্ষমতা নেই, তাদের ক্ষমতা ও আস্থার জায়গা জনগন, যারা তাদের নির্বাচিত করেছে। আমরা যা কিছু করি তা সেই মৌলিক সত্য দিয়ে শুরু হবে – যেটা ডিয়ারবর্নের জনগণের আছে। এটাই চূড়ান্ত শক্তি।”

তিনি বলেন, “জনসাধারণের সেবায় আমরা জীবন উৎসর্গ করবো। আমি জানি যে কোনো নির্বাচিত কর্মকর্তার স্বপ্নের চেয়ে আমরা যে জনসাধারণের সেবা করি তার মধ্যে আরও বেশি প্রজ্ঞা রয়েছে। আমাদের সিটির চারটি কোণে বিশেষ কিছু আছে। এটি ডিয়ারবর্নকে সমৃদ্ধ এবং প্রাণবন্ত করে তোলে যা আমরা সকলেই ভালোবাসি।”

হাম্মুদ আরো বলেন, “প্রশাসন হিসাবে আমরা আমাদের ডিয়ারবর্ন সরকারকে আমাদের শহরের জনগণের মতোই গতিশীল এবং নাগরিক মনের মতো করে গড়ে তুলব এবং সেই কারণেই মেয়র হিসাবে আমার এক নম্বর লক্ষ্য ছিল শহরের বিশেষজ্ঞ জনসেবার সবচেয়ে যোগ্য দলকে একত্রিত করা।”

অনুষ্ঠানের পরে এক প্রশ্নের উত্তরে হাম্মুদ বলেন, “অবশ্যই, আমরা এগিয়েছি এবং আমরা ব্যক্তিদের নির্বাচিত করি তাদের নেতৃত্ব দেখে, তারা কোথা থেকে এসেছেন সেটা কোনও বিষয় নয়। আমরা কখনই প্রথম হওয়ার জন্য দৌড়াইনি, আমরা সেরা হওয়ার জন্য দৌড়েছি।

তাঁর পরিবার লেবানন থেকে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমায়। হাম্মুদ বেড়ে উঠেছেন ডিয়ারবোর্নে, যেটি যুক্তরাষ্ট্রে আরব আমেরিকানদের বৃহত্তম সম্প্রদায়ের আবাসস্থল। তিনি অ্যান আরবারের মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জনস্বাস্থ্য এবং ব্যবসায় প্রশাসনে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। হাম্মুদ ২০১৬ সালে মিশিগানের ১৫ তম জেলার রাজ্য প্রতিনিধি নির্বাচিত হওয়ার আগে একজন স্বাস্থ্যসেবা পরামর্শদাতা হিসাবে কাজ করেন। তিনি রাজ্য আইনসভায় তিনটি মেয়াদে দায়িত্ব পালন করেছিলেন, যেখানে তিনি ১১টি বিল এবং রেজোলিউশন পাস করতে সহায়তা করেছিলেন।

ডিয়ারবর্ন সিটি কাউন্সিলের সাত সদস্য, ডিয়ারবর্ন চার্টার কমিশনের নয়জন সদস্য এবং ডিয়ারবর্ন সিটি ক্লার্ক জর্জ ড্যারানিও শপথ নেন।