বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন করেছে জ্যামাইকাবাসী নিউইর্য়ক, যুক্তরাষ্ট্র

গত রোববার ১৫ আগস্ট ছিল জাতীয় শোক দিবস। স্বাধীনতার স্থপতি, মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক,বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাত বার্ষিকী।এই দিবসটি জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বাঙালি জাতি গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে পালন করে।তবে, এবারও বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। বিনম্র শ্রদ্ধায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন করেছে জ্যামাইকাবাসী নিউইর্য়ক, যুক্তরাষ্ট্র। এই প্রথম বারের মতো ১৬৮ ষ্টিট হিসাইড জ্যামেইকায় রাস্তা ব্লক করে নিউইর্য়কে ১৫ ই আগষ্ট বঙ্গবন্ধুর জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়।দুপুর ২ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত আয়োজিত অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মাওলানা বেলাল হোসেন।পরে ৭৫ এর ১৫ আগস্টে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ নিহত শহীদদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।

দোয়া শেষে ছিল সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা।অনুষ্ঠানের জ্যামেইকা জাতীয় শোক দিবসে সদস্য সচিব মোঃ আমিনুল ইসলামের পরিচালনায় প্রথমেই শুভেচ্ছা বক্তৃতা রাখেন জাতীয় শোক দিবসের আহব্বায়ক মোঃ কামরুজ্জামান মুরাদ, যুগ্নআহবায়ক সাইকুল ইসলাম, প্রধান সমন্বয়কারী সাফায়াত রহমান এবং যুগ্ন সমন্বয়কারী রেজাউল আলম অপু।সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন যুগ্ম আহবায়ক যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি সাইকুল ইসলাম, এবং যুগ্নসদস্য সচিব দেওয়ান কামরুল হাসান।এ সময় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান বলেন,পঁচাত্তরে খুনীরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল, কিন্তু তাঁর আদর্শকে হত্যা করতে পারেনি। তাঁর আদর্শে উজ্জীবিত মুজিব সৈনিকরা আজ বাংলাদেশকে এক অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন।তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা, বাংলাদেশের চারবারের সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে দক্ষিন এশিয়া তথা এশিয়ার অন্যতম শক্তিশালী অর্থনৈতিক দেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু বাঙ্গালীর নেতা ছিলেন না, তিনি ছিলেন বিশ্বনেতা।তাঁর সৃস্ট বাংলাদেশ আজ সারা বিশ্বের বিস্ময়।বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মন্জুর আলম শাহীন বলেন,জাতীয় শোক দিবসে শোককে শক্তিতে পরিণত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।ভবিষ্যতে কোন অশুভ শক্তি যাতে মাথাচাড়া দিয়ে ওঠতে না পারে সেদিকে সদা দৃষ্টি রাখতে হবে।সংক্ষিপ্ত আলোচনায় অন্যানের মধ্যে অংশ নেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের যুগ্নসাধারন সম্পাদক আইরীন পারভীন,সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হাসিব মামুন,প্রবাসী কল্যাণ সম্পাদক মো: সোলায়মান আলী, সদস্য জহুরুল ইসলাম নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মুনির হোসেন, সহ সভাপতি একেএম আলমগীর,যুগ্নসাধারন সম্পাদক ইসমাইল হোসেন স্বপন,যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের আহবায়ক তারিকুল হায়দার চৌধুরী, যুগ্ম আহবায়ক প্রকৌশলী বাহার খন্দকার সবুজ, সদস্য আতিকুর রহমান সুজন,একরামুল হক সাবু,মোহাম্মদ ওয়াহিদ,গনেশ র্কীতনিয়া,আমিনুল ইসলাম, স্বপন কর্মকার মোহাম্মদ সাঈদ,বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ আন্তর্জাতিক সম্পাদক সাখাওয়াত বিশ্বাস, বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রাকিব হাসান, যুক্তরাষ্ট্র স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক সৈয়দ কিবরিয়া জামান,নিউইর্য়ক সিটি যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক জুনেদ আহমেদ এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।


সবশেষে উপস্থিত এলাকাবাসী ও নেতাকর্মীদের মাঝে তবারক বিতরণ করা হয়।দুপুর ২ টা হতে রাত ১০ টা পর্যন্ত তা অব্যাহত থাকে।সকলের সহযোগিতার জন্য আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে আহব্বয়ক মোঃ কামরুজ্জামান মুরাদ সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।আগামী বছর আবারো আহব্বায়ক কমিটি মাধ্যমে জাতীয় শোক দিবসের আয়োজন করা হবে বলে জানানো হয়।