রাস্তা থেকে জিয়ার নামের ফলক নামিয়ে নিল বাল্টিমোর সিটি

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যারিল্যান্ড স্টেটের বাল্টিমোর শহরের একটি রাস্তা থেকে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি শহীদ জিয়াউর রহমানের নামের নামফলক সরিয়ে ফেলেছে স্থানীয় প্রশাসন। বাল্টিমোরের ২০০ ওয়েস্ট সারাটগা স্ট্রিটে গত জুন মাসে ‘জিয়াউর রহমান ওয়ে’ নামফলক লাগানো হয়েছিল। বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সিটির কর্মকর্তারা সেটি খুলে নিয়ে যান।

জানা গেছে প্রবাসী বিএনপির নেতা-কর্মীদের উল্লাসের মধ্যে গত ২০ জুন নগর প্রশাসনের পক্ষ থেকে ওই নামফলক উন্মোচন করা হয়েছিল। সেটি সম্ভব হয়েছিল ম্যারিল্যান্ড স্টেট বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য এবং স্থানীয় ব্যবসায়ী মোহাম্মদ কাজলের চেষ্টায়। জিয়াউর রহমানের নামে এই সড়কের নামকরণ করার পর প্রবাসীদের একাংশ ক্ষোভ প্রকাশ করে বাল্টিমোর সিটি এবং ম্যারিল্যান্ড স্টেট প্রশাসনে আবেদন জানিয়েছিলেন সেটা নামিয়ে ফেলার জন্য। ফলশ্রুতিতে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রাক্তন সাধারন সম্পাদক জনাব শামীম চৌধুরী এবং যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগ ও সহযোগী সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ এই নামকরণ অপসারণের প্রক্রিয়া শুরু করেন এবং জিয়াউর রহমানের নামের নামফলক সরিয়ে নেওয়া হয়।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড: সিদ্দিকুর রহমান বলেন, কর্তৃপক্ষ নামফলক নামিয়ে ফেলায় প্রবাসীরা আনন্দিত হয়েছেন।একজন স্বৈরশাসকের নামে যুক্তরাষ্ট্রের মতো গণতান্ত্রিক দেশে কোনো স্থাপনার নাম হতে পারে না।এই নামকরণের বিরুদ্ধে সমগ্র যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী দেশ প্রেমিক আওয়ামী নেতাকর্মীরা ঘৃণা প্রকাশ করে আসছে। যাঁরা এ ব্যাপারে সহযোগিতা বা অংশগ্রহণ করেছেন সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি। ভবিষ্যতেও আমরা এই প্রবাসের মাটিতে যে কোন অযৌক্তিক কর্মকান্ড সন্মিলিত ভাবে প্রতিহত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করছি।

যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের আহ্বায়ক এ কে এম তারিকুল হায়দার চৌধুরী বলেন, বাঙালি জাতির মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের ঘাতক হিসেবে জিয়াউর রহমানকে ইতিহাসের কাঠগড়ায় অবশ্যই দাঁড়াতে হবে। একদল লোক মার্কিন প্রশাসনকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করেছিলেন, আমরা লাগাতার চেষ্টায় সেটি সংশোধনে সক্ষম হলাম।

যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মোঃ রিয়াজুল কাদির লস্কর মিঠু বলেন, সত্যকে কোনদিন ধামাচাপা দিয়ে রাখা যায়না। খুনিচক্র দেশে বিদেশে প্রপাগান্ডা ছড়িয়ে স্বাধীনতা বিরোধী কর্মকান্ডে লীপ্ত রয়েছে। এ ব্যাপারে সবার সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।